হোমপেজ জাতীয় ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে স্বদেশ করপোরেশনের চেয়ারম্যান-জিএম আটক

২০ কোটি টাকা হাতিয়ে স্বদেশ করপোরেশনের চেয়ারম্যান-জিএম আটক

213
0

নিউজ ডেস্ক: নকল স্যানিটাইজার পণ্য মজুদ এবং ঋণ দেয়ার নামে জামানত সংগ্রহ ও পরবর্তী সময়ে ঋণ না দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে স্বদেশ করপোরেশন লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও মহাব্যবস্থাপককে (জিএম) আটক করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ওই প্রতিষ্ঠান থেকে বিপুল নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার সামগ্রীও জব্দ করা হয়। বুধবার (২৪ জুন) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত রাজধানীর মতিঝিলে মধুমিতা সিনেমা হলের বিপরীতে সমবায় ব্যাংক ভবনের পঞ্চম তলায় এই অভিযান চালানো হয়।

অভিযানে আটককৃতরা হলেন, প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান সাইফুল কবির ও জিএম শফিকুল ইসলাম।

অভিযান পরিচালনা করেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু। তিনি জানান, স্বদেশ করপোরেশনের জামানত গ্রহণ ও ঋণ দেয়ার এখতিয়ার নেই। কিন্তু প্রতারণামূলকভাবে প্রত্যন্ত অঞ্চলের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ দেয়ার কথা বলে প্রায় চার থেকে পাঁচ হাজার ব্যক্তির কাছ থেকে ২০ কোটি টাকারও বেশি জামানত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে ঋণ না পেয়ে গ্রহীতা যখন জামানত ফেরত চায়, সেটি না দিয়ে লেনদেন ও টাকাবিহীন একটি অ্যাকাউন্টের চেক দিতেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শফিকুল কবির। তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে গত দুই বছর ধরে কোনো টাকা না থাকায় সব চেকই ডিজওনার হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, এ প্রতিষ্ঠান নিয়মিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। আমরা প্রচুর বিজ্ঞপ্তি ও রেডি অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটার দেখতে পেয়েছি। যখন নতুন কোনো লোক আসে, তখন তাদেরকে ঋণগ্রহীতা সংগ্রহ ও তাদের কাছ থেকে জামানত আনতে বলে। সারাদেশে তাদের ২২টি ব্রাঞ্চ আছে। তবে এম্প্লয়ি রেজিস্ট্রার খুঁজে পাওয়া যায়নি। আর যারা কাজ করছেন, তাদেরও অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়া যায়নি। যখন নতুন কেউ আসে তখন তাকে ফিল্ডে পাঠিয়ে দেয়া হয়। কয়েক মাস কাজ করার পর সে যখন এদের বুঝতে পারে, তখন চলে যায়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরও বলেন, এই প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্র অনুযায়ী টাকা ডিপোজিট নেয়া এবং ঋণ দেয়ার এখতিয়ার নেই। এছাড়া করোনার সুযোগে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রি, নকল শিশু খাদ্য, বেভারেজ পণ্য, নকল মশার কয়েল উৎপাদন ও বিক্রি করছিল স্বদেশ করপোরেশন।

আটককৃতরা তাদের দোষ স্বীকার করায় প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান সাইফুল কবিরকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ২ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলাও হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে