হোমপেজ রাজনীতি করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি: কাদের

করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি: কাদের

471
0

সরকার করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে এবং এতে সামিল হতে গোটাজাতিকে আহ্বান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। করোনাভাইরাস নিয়ে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে। এ যুদ্ধ জয়ের স্বার্থে সরকারের কিছু কৌশল আছে বলেও জানান তিনি।

সোমবার (২৪ মার্চ) সচিবালয়ের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক ইস্যুতে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন৷

ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা নিয়ে কেন তথ্য গোপন করবো। সরকারের কিছু কৌশলগত বিষয় আছে। যুদ্ধ জয়ের স্বার্থে কৌশল হিসেবে গোপন করাটাও প্রয়োজন হতে পারে সেটা ভিন্ন ব্যাপার কিন্তু বাস্তবতাকে অস্বীকার করে এড়িয়ে কোন কিছু করা যাবে না।

তিন মাস সময় পেলেও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নেয়নি ও তথ্য গোপনের অভিযোগের প্রশ্নে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তথ্য গোপন করেতো আমি যুদ্ধে জেতার আগেই হেরে যাচ্ছি, তথ্য কেন গোপন করবো। সরকারের কিছু কৌশলগত বিষয় আছে। কৌশলগত বিষয় চায়নাকেও অবলম্বন করতে হয়েছে।

সরকারের একমাত্র মনোযোগ অভিন্নশত্রু করোনা এবং সরকার যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। এ যুদ্ধে সামিল হতে গোটাজাতিকে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমি একটা কথা বলছি যখন যে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন সে ব্যবস্থা নেয়ার ব্যাপারে শেখ হাসিনা সরকার প্রস্তুত আছে।

সরকারের প্রতি আস্থা কিভাবে রাখাবেন যেখানে ডাক্তারদের পিপিই নেই প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, নেই একথাটা বলা ঠিক নয়, ঘাটতি আছে। পিপিই সংগ্রহ করার জন্য জরুরি পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। সবকিছুর জন্য সরকারের প্রস্তুতি আছে।

তিনি বলেন, ডাক্তারদের প্রস্তুতি নেয়া আছে। করোনা যুদ্ধে মোকাবিলায় তারা দায়িত্ব পালন করবে এবং তাদের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম জোগাড়ে সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছে। দেশে যা নেই তা বিদেশ থেকে আনার চেষ্টা চলছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, এ যুদ্ধ আসবে বা তা মোকাবিলার প্রস্তুতি কারোই ছিল না। পৃথিবীর কোনো দেশরই ছিল না, আমাদেরও ছিল না।

করোনার ব্যাপারে সরকারের আন্তরিকতার অভাব নেই জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখনো আতঙ্কিত হওয়ার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। অহেতুক আতঙ্কিত হবে এমন অপপ্রচার, গুজব থেকে বিশেষ করে ফেসবুকে অপপ্রচার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

আক্রান্তরা সবাই পরীক্ষা করতে পারছে না এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের বলেন, এখানে প্রাথমিকভাবে কিছু দুর্বলতা ছিল সেগুলো কাটিয়ে উঠার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে এবং টেস্টের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য সরকার জোরদার প্রস্তুতি শুরু করেছে।

চীনের অভিজ্ঞতা দেখার পরও কেন লকডাউন করা হলো না জানতে চাইলে কাদের বলেন, উন্মুক্ত করে রাখা হয়নি যেখানে প্রয়োজন হচ্ছে সেখানে লকডাউন করা হচ্ছে।

এক সাথে লকডাউনের পরিকল্পনা রয়েছে কিনা জানতে চাইলে কাদের বলেন, সবকিছুই চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে