হোমপেজ অপরাধ এমপির নির্যাতনে শিক্ষক আহত

এমপির নির্যাতনে শিক্ষক আহত

263
0

স্টাফ রিপোর্টারঃ কুড়িগ্রামের ডিসির ক্ষমতার অপব্যবহার যখন টক অব দ্যা কাউন্ট্রিতে চলমান।সেই আলোচনা-সমালোচনার রেশ কাটতে কাটতেই নেত্রকোনায় এক এমপির ক্ষমতার দাপটে শিক্ষক মৃত্যু শয্যায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। নেত্রকোনা জেলায় মোহনগঞ্জ থানায় এমপির সভা চলাকালে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করায় শিক্ষককে মারধর করার অভিযোগে জেলাব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়েছে। নেত্রকোনা-৪ আসনের (মদন-মোহনগজ্ঞ-খালিয়াজুড়ি) সংসদ সদস্য রেবেকা মোমেনের মিটিং চলাচলে মোবাইল ফোনে এক শিক্ষক মিটিং এর ভিডিও ধারন করায় এমপি তার ক্ষমতাবলে পালিত সন্ত্রাসী বাহিনি দিয়ে শিক্ষককে বেদম মারপিট করে। মারধরের পর শিক্ষককে থানায় পুলিশে সোপর্দ করেছে বলেও অভিযোগে রয়েছে। নির্যাতিত শিক্ষক খাইরুল কবীর(৪৫) উপজেলার ৫নং সমাজশৈলদহ ইউনিয়নের রাম জীবন নগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। এই ঘটনায় উপজেলার শিক্ষক নেতৃবৃন্দের মাঝে চরম ক্ষোভের দেখা দিয়েছে। ভিডিও ধারণের অপরাধে একজন শিক্ষককে এমনভাবে এমপি তার লেলিয়ে দেওয়া সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে নির্মম আঘাত করায় অনেকেই বিষয়টিকে কুড়িগ্রামের ডিসির মত আরেকটা ক্ষমতার অপব্যবহার মনে করছেন। এই ঘটনায় প্রকাশে কেউ এই ঘটনার প্রতিবাদ করার সাহস না পেলেও বঙ্গকন্যা, মহিয়সী নারী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করেছেন শিক্ষক বৃন্দ। মোহনগঞ্জ সদর থানার ওসি আব্দুল আহাদ খাঁন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এমপির মিটিং চলাকালে শিক্ষক খাইরুল কবীর মোবাইলে তার ভিডিও করায় তার প্রতি সন্দেহের তৈরী হলে এমন ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষক খাইরুলকে থানায় আনার পর তার শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানা হেফাজতে নেয়া হলে ফের বুকে ব্যাথা এবং ঘন ঘন বমি হতে থাকলেও তাকে পুনরায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। বর্তমানে ওই শিক্ষক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৭নং ওয়ার্ডের ২নং বেডে পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ওসি আহাদ আরো জানান, ক্ষতি ও মানহানি করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্যের মিটিংয়ের ভিডিও ধারণ করার অভিযোগ এনে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মোমেন ঠাকুর বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। ওসি জানায়-এই ঘটনায় এমপির পক্ষ একটি অভিযোগ হাতে পেয়েছি তবে আহত শিক্ষক খাইরুলের পক্ষ থেকে এখনো মামলা করতে কেউ আসেনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে