হোমপেজ সারা বাংলা “জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরে প্রভাত ফেরি, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত”

“জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরে প্রভাত ফেরি, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত”

232
0

বিশেষ প্রতিবেদক: ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলতে পারি?’ বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ফুলবাড়ীয়ার জঙ্গলবাড়ী গ্রামে পালিত হয়েছে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। শিখরী ফাউন্ডেশনের “একটি গ্রাম, একটি পাঠাগার” প্রকল্পের অধীনে প্রতিষ্ঠিত জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রভাতফেরি শেষে শহীদ মিনারে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস। এদিন ভোরেই জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের উদ্যোগে জঙ্গলবাড়ী গ্রামের ইতিহাসে তৃতীয়বারের মতো একুশের বর্ণাঢ্য প্রভাতফেরি বের করা হয়, যা জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের সামনে থেকে জঙ্গলবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে শেষ হয়।

এসময় উপস্থিত অতিথিবৃন্দ -সহ গ্রামের শতাধিক শিশু-কিশোর ও বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ শহীদ মিনারের বেদীতে ফুল দিয়ে বায়ান্নর ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে “মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, সর্বস্তরে মাতৃভাষা করবো ব্যবহার” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের সভাপতি মেহেদী কাউসার ফরাজী’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিখরী ফাউন্ডেশনের সহপরিচালক সাইফুল আলম তুহিন, অর্থ মন্ত্রণালয়ে কর্মরত রেজাউল করিম সুমন, জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের উপদেষ্টা আসাদুজ্জামান আসাদ ফরাজী, এফডি রায়হান ও সাদ্দাম হোসেন, জঙ্গলবাড়ী বাতিঘরের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ ফকির, সহসভাপতি সুমন মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হোসাইন ফিরদাউস ও ইমামুল হাসান পিয়াস -সহ কার্যনির্বাহী পরিষদের নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের সদস্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার প্রতিযোগীবৃন্দ। এসময় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ও বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার হিসেবে বই ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ২০২০ গতকাল জঙ্গলবাড়ী ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে