মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:২৯ অপরাহ্ন

করোনার টিকা নেওয়ার পরেই অসুস্থ, অক্সফোর্ডের ট্রায়াল স্থগিত

করোনার টিকা নেওয়ার পরেই অসুস্থ, অক্সফোর্ডের ট্রায়াল স্থগিত

বিশ্বজুড়ে গত ১০ মাস ধরে একই গতিতে অব্যাহত আছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। চীন থেকে শুরু হওয়া এই ভাইরাস এখন বিশ্বের ২১৫ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। পৃথিবীবাসীর লক্ষ্য এখন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের দিকে। ইতিমধ্যে পৃথিবীর কয়েকটি দেশ ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টায় আছে। এর মধ্যে সবার থেকে এগিয়ে ছিল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন।

 

তবে বিশ্বব্যাপী আশা জাগানিয়া অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের তৃতীয় (সর্বশেষ) পর্যায়ের ট্রায়াল সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে। ব্রিটেনে একজন ভ্যাকসিন গ্রহীতা অসুস্থ হয়ে পড়ায় আপাতত তাদের এ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। তবে যে ব্যক্তিটি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন, তার অসুস্থতার ধরন সম্পর্কে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।

 

 

 

বিবিসি জানায়, অসুস্থ হয়ে পড়া ওই ব্যক্তিতে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এই ভ্যাকসিন উৎপাদনে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশীদার অ্যাস্ট্রাজেনেকা আশা করছে, খুব শিগগিরই ফের ট্রায়ালটি শুরু করা যাবে। প্রাপ্ত তথ্য মতে, করোনার যত টিকা নিয়ে কাজ হচ্ছে এর মধ্যে অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই ভ্যাকসিনটিই সবচেয়ে বেশি সাড়া জাগিয়েছে।

 

করোনার এই ভ্যাকসিনের এটি তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে। এর আগে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়াল সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছিল। তৃতীয় ধাপে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের প্রায় ৩০ হাজার মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হচ্ছে ভ্যাকসিনটি। এই ধাপে সাফল্য মিললেই বাজারজাত করার জন্য প্রস্তুত হয়ে উঠবে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন। ট্রায়াল স্থগিত করতে হলেও একে ‘রুটিন’ কার্যক্রম হিসেবে অভিহিত করেছে অ্যাস্ট্রেজেনেকা। তারা বলছে, বড় বড় ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ক্ষেত্রে এমনটি হয়ে থাকে।

 

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন মুখপাত্র এ বিষয়ে বলেন, বড় বড় ট্রায়ালের সময় কেউ কেউ এমনিতেই অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। এরকম ক্ষেত্রে আলাদাভাবে তার সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হয়ে থাকে। জানার চেষ্টা করা হয়, তার অসুস্থ হওয়ার পেছনে ভ্যাকসিনের কোনো ভূমিকা রয়েছে কি না।

 

বিশ্বের বিভিন্ন স্থানেই অক্সফোর্ডের টিকাটির ট্রায়াল চলছে। অক্সফোর্ড কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনার এই ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির অসুস্থতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানার আগ পর্যন্ত এর ট্রায়াল বন্ধ থাকবে সব জায়গায়। স্বতন্ত্রভাবে ওই ব্যক্তির শারীরিক অবস্থার তথ্য জানার পর ট্রায়াল শুরু করতে চাইলে নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমতি লাগবে।

 

এ ক্ষেত্রে অসুস্থ ব্যক্তির শারীরিক অবস্থার তথ্য না মিললেও সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, খুব শিগগিরই তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন এবং ট্রায়ালও শুরু করা যাবে। সূত্র : বিবিসি।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest