বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

আরবদের নির্বাসনে পাঠাতে চান ইসরায়েলি মন্ত্রী

আরবদের নির্বাসনে পাঠাতে চান ইসরায়েলি মন্ত্রী

ফিলিস্তিনি আরবদের ট্রেনে করে সুইজারল্যান্ডে নির্বাসনে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন ইসরায়েলের ধর্ম বিষয়ক উপমন্ত্রী মাতান কাহানা তিনি বলেন, এমন একটি বাটন টেপা যেত যার মাধ্যমে সমস্ত (ফিলিস্তিনি) আরবদের অদৃশ্য করে দেয়া যেত। যার মাধ্যমে আরবদের একটি এক্সপ্রেস ট্রেনে করে সুইজারল্যান্ডে পাঠানো যেত।

মঙ্গলবার অধিকৃত পশ্চিম তীরের ইফ্রাত (ইহুদি) বসতিতে একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলার সময় মাতান কাহানা এমন মন্তব্য করেন।

উপমন্ত্রী মাতান কাহানা আরও বলেছেন, তারা সেখানে আরাম-আয়েসে জীবন অতিবাহিত করুক এতে কোনো সমস্যা নেই। তাদের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে ভালো সুযোগ-সুবিধা দিতে চান তবে তার বিনিময়ে সেই বাটনটি টিপে তাদেরকে নির্বাসন করা হোক।

তার এমন মন্তব্যের পর ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে পড়ে। পরে এটি ইসরায়েলি ব্রডকাস্ট কর্পোরেশনে প্রকাশ করে।

তিনি বলেন, ১৯৬৭ সালের আগের সীমানায় ফিরে যাই তবে এখানে দু’রাষ্ট্র (ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন) থাকবে, যারা একে অপরের সাথে শান্তিতে বসবাস করবে বলে অনেকেই মনে করে কিন্তু আমি মনে করি এটা একটা বাজে কথা। এটা এক ধরনের পাগলামি।

তার এমন মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন ইসরায়েলি পার্লামেন্টের আরব সদস্য আহমদ তিবি। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ‘এখানে একটি বাটন আছে যা আপনাকে সরকার ও পার্লামেন্ট থেকে বহিষ্কার করবে। এটা আমি শীঘ্রই চাপব।’

ইসরায়েলি ব্রডকাস্ট কর্পোরেশন জানিয়েছে, মাতান কাহানা পরে আহমদ তিবিকে ফোন করেছেন এবং তার ওই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন।

উল্লেখ্য, ইসরায়েলিরা ফিলিস্তিনি আরবের সাথে অমানবিক আচরণ করে থাকে। এ বিষয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ কর্তৃক গঠিত এক স্বাধীন তদন্ত কমিশনের প্রতিবেদনে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতের মূল কারণ হলো ইসরায়েলি ‘দখলদারি ও বৈষম্যমূলক নীতি।’

১৮ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘কেবল ইসরায়েলি দখলদারিত্বের অবসান করলেই যথেষ্ট পদক্ষেপ নেয়া হবে না।’ ফিলিস্তিনিদের সমান মানবাধিকার নিশ্চিতে আরও পদক্ষেপ নিতে হবে।

সূত্র : দ্যা টাইমস অব ইসরায়েল, ইয়েনি শাফাক


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest