রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন

অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে মিয়ানমারের সরকারি সাইট হ্যাক

অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে মিয়ানমারের সরকারি সাইট হ্যাক

টানা চতুর্থ রাতের মতো ইন্টারনেট বন্ধ রাখার প্রতিবাদে মিয়ানমারে সাইবার যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার সেনা সরকার পরিচালিত বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইটে হামলা চালিয়েছে হ্যাকাররা। মিয়ানমার হ্যাকারস হিসেবে পরিচয় দেওয়া একটি গ্রুপে হামলায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক, সামরিক বাহিনীর প্রচারণা পেজ, রাষ্ট্রপরিচালিত সম্প্রচারমাধ্যম এমআরটিভি, বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনসহ বেশ কয়েকটি সরকার পরিচালিত ওয়েবসাইট বিঘ্নিত হয়েছে। থাইল্যান্ডের সংবাদমাধ্যম ব্যাংকক পোস্টের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ মাসের শুরুতে অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় আসা মিয়ানমারের সেনাবাহিনী দেশটিতে নতুন নির্বাচন আয়োজনে প্রতিশ্রুতি দিলেও তা উপেক্ষা করে রাস্তায় নামছে মানুষ। বিক্ষোভকারীরা সামরিক জান্তার আশ্বাসের ব্যাপারে ব্যাপক সন্দিহান। দেশটির সামরিক বাহিনীর ভাষ্য, গণতান্ত্রিক সরকার উৎখাতে জনগণের সমর্থন আছে। তবে সেই ভাষ্যকে মিথ্যে প্রমাণ করে বুধবারও বড় ধরনের প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিতে ইয়াঙ্গুনে জড়ো হয়েছেন অভ্যুত্থানবিরোধী কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। ওই বিক্ষোভের পরদিনই মিয়ানমারের সরকারি ওয়েবসাইটে হামলা চালিয়েছে হ্যাকাররা।

মিয়ানমার হ্যাকারস গ্রুপটি নিজের ফেসবুক পেজ-এ বলেছে, ‘আমরা মিয়ানমারে ন্যায়বিচারের জন্য লড়ছি। এটা এমন ঘটনা যেন সরকারি ওয়েবসাইটের সামনে বিক্ষোভ করছে হাজার হাজার মানুষ।’
অস্ট্রেলিয়ার আরএমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ম্যাট ওয়ারেন বলেছেন, মনে হচ্ছে এই হ্যাকিংয়ের উদ্দেশ্য হলো জনসমর্থন তৈরি করা। তিনি বলেন, ‘এই হ্যাকিংয়ের প্রভাব সম্ভবত সীমিত হবে কিন্তু তারা যা করছেন তা হলো সচেতনতা বৃদ্ধি।’

এদিকে, বৃহস্পতিবার রাত একটা থেকে মিয়ানমারে আরও একবার ইন্টারনেট বন্ধ রাখা শুরু হয়েছে। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক পর্যবেক্ষক নেটব্লকস জানিয়েছে, দেশটিতে ইন্টারনেট সংযোগ স্বাভাবিক পর্যায়ের চেয়ে ২১ শতাংশ কমে গেছে।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest