মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০২:৫৩ অপরাহ্ন

সংকটেও আ.লীগের চ্যালেঞ্জ

সংকটেও আ.লীগের চ্যালেঞ্জ

মাঠের রাজনীতিতে নেই সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর আন্দোলন-সংগ্রাম। তাই নিজ দলের মেয়াদোত্তীর্ণ ইউনিটির সম্মেলন, চট্টগ্রাম সিটি, পৌরসভা ও আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত এবং বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনসহ নানামুখী সাংগঠনিক কার্যক্রম নিয়ে নতুন বছরে ব্যস্ত সময় পার করবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ

একই সাথে সরকারবিরোধী যেকোনো ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সতর্ক থেকে এ বছরও রাজনীতির মাঠ দখলে রাখতে চায় ক্ষমতাসীনরা। তবে এসব কার্যক্রমে বছরজুড়েই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে আওয়ামী লীগকে। এদিকে করোনা সংকটেও যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন দলটির দায়িত্বশীল নেতারা। তারা বলছেন, দেশ ও দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে সব সময় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হয়। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আওয়ামী লীগ সবসময় প্রস্তুত।

টানা বারো বছর রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার। ক্ষমতার দীর্ঘ সময়ে ভোট ও মাঠের রাজনীতিতে সফল দলটির সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার একক নেতৃত্বে একাদশ জাতীয় নির্বাচন, পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এবং বেশকটি সংসদীয় আসনে উপনির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করেছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা। এসব প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে ভোটের মাঠে ঐক্যবদ্ধ দলটির নেতাকর্মীরা। সদ্য সমাপ্ত ও বিগত বছরগুলোর মতোই নতুন বছরেও ভোটের মাঠে বেশকিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে আওয়ামী লীগের।

বিশেষ করে গত ২৮ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া পৌরসভা নির্বাচন, চট্টগ্র্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে। যদিও পৌরসভায় প্রথম ধাপের নির্বাচনে অধিকাংশ স্থানে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। একদিকে দলের অভ্যন্তরে কোন্দল অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। ফলে বছরের শুরু থেকেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে আ.লীগকে।    আসন্ন পৌর, সিটি ও ইউপি নির্বাচনের পাশাপাশি ঘরের রাজনীতিতেও সক্রিয় থাকতে চায় আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে দলটির তৃণমূলের ইউনিটি থেকে হাইব্রিড, স্বাধীনতাবিরোধী ও ভিন্নপন্থি দলগুলোর নেতাকর্মীদের ছেটে ফেলতে চায়।

এজন্য মেয়াদোত্তীর্ণ ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা, মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন চলতি বছরেই শেষ করতে চায়। অনুষ্ঠেয় এসব সম্মেলনের মধ্য দিয়ে  দলটির ত্যাগী, পরিশ্রমী, মেধাবী ও দুর্দিনের রাজপথে আন্দোলন সংগ্রমের নেতৃত্ব দেয়া নেতাকর্মীদের দায়িত্বশীল পদে বসাতে চায়।

যদিও করোনায় গত বছরের মার্চ থেকে দীর্ঘ সময় দল গোছানোর কাজ স্থগিত রাখতে হয়েছিল। গত সেপ্টেম্বরের পর থেকে তৃণমূলের সম্মেলন শুরু করে দলটি। প্রায় অর্ধেকের বেশি জেলা মেয়াদোত্তীর্ণ। যে কয়টির সম্মেলন হয়েছে তার মধ্যে পূর্ণাঙ্গ হয়েছে মাত্র দু-তিনটি। ২০২১ সালে এ কাজগুলো সঠিকভাবে শেষ করতে চায় আওয়ামী লীগ

চলতি বছর উদযাপন হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। তাই নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। যদিও সদ্য সমাপ্ত বছরের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের জন্য ব্যাপক পরিকল্পনা ও কর্মসূচি হাতে নিয়েছিল। করোনা সংক্রমণ রোধ ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সংক্ষিপ্ত ও স্থগিত করা হয় জন্মশতবার্ষিকীর কর্মসূচি।

বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক থাকায় বড় পরিসরে পালন করতে চায় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী।একাদশ জাতীয় নির্বাচনের ইশতেহারে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আশার পর থেকেই এসব বাস্তবায়ন করছেন। বিগত বছরের দুর্নীতি, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, সন্ত্রাস, মাদককারবারি ও দলের দায়িত্বশীল পদে থেকে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত থাকা নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে আওয়ামী লীগ। যেকোনো মূল্যে নির্বাচনি ইশতেহার বাস্তবায়ন করতে চায় তারা।

মাঠের রাজনীতিতে এখন নীবর বিএনপিসহ সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। আন্দোলন সংগ্রামে তাদের নেই কোনো কর্মসূচি। তবে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে অংশগ্রহণের নামে সরকারবিরোধী নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হতে পারে। তাই ওইসব রাজনৈতিক দল ও দলের নেতাকর্মীদের গতিবিধি নজরে রাখবে আওয়ামী লীগ। এজন্য সতর্ক রয়েছেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান আমার সংবাদকে বলেন, দেশ ও দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে সব সময় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হয়। আওয়ামী লীগও সবসময় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে দেশ ও দেশের মানুষের স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ছিলো আমাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ। করোনা পরিস্থিতি আমরা সফলতার সাথে মোকাবিলা করেছি। চলতি বছরও চ্যালেঞ্জ থাকবে। এ পরিস্থিতির মধ্যেও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করবো। আশা করি এ সংকটও কেটে যাবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহাউদ্দীন নাছিম আমার সংবাদকে বলেন, করোনাকালেও সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র থেমে নেই। ওইসব ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় আওয়ামী লীগের প্রতিটি ইউনিটির নেতাকর্মীরা প্রস্তুত। কোনোভাবেই ষড়যন্ত্রকারীদের ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি আরও বলেন, করোনা সংকটে প্রতিটি নেতাকর্মী দেশের প্রতিটি মানুষের পাশে ছিলো। আগামীতেও এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। করোনা চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে তিনি বলেন, করোনার কারণে আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রমের কিছুটা গতি কমিয়ে দেয়া হয়েছে। আশা করি দ্রুত এ সংকট কেটে যাবে এবং সাংগঠনিক কার্যক্রম পূর্ণরূপে শুরু করা হবে।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest