বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৩৮ পূর্বাহ্ন

খালেদা জিয়ার মুক্তিতে শর্ত, যা বলছে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

খালেদা জিয়ার মুক্তিতে শর্ত, যা বলছে বিএনপির সিনিয়র নেতারা

বিদেশে যাওয়া যাবে না শর্তে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আরও ৬ মাসের মুক্তি দেয়া হয়েছে। তবে এতে সন্তুষ্ট না বিএনপির সিনিয়র নেতারা। তারা বলছেন, অসুস্থ নেত্রীকে চিকিৎসা নিতে বিদেশে যেতে না দেয়া পুরোপুরি অমানবিক। তাদের দাবি, বিদেশে না যাওয়ার শর্ত প্রত্যাহার করে বেগম খালেদা জিয়াকে দ্রুত চিকিৎসা নিতে দেশের বাইরে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে।

এ বিষয়ে আলাপকালে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে ৬ মাসের জামিনে পূর্বের যে, শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে এটা আমানবিক। যদি শাস্তি স্থগিতই করবে তাহলে বেগম জিয়ার স্বাধীনতা থাকা উচিত, যেখানে ইচ্ছে সেখানে তিনি চিকিৎসা করবেন। শর্ত প্রত্যাহার করে বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য সুযোগ দেওয়ার জন্য দাবি জানাচ্ছি।

বেগম জিয়ার পরিবারের পাশাপাশি খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠাতে দলের পক্ষ থেকে কোন ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হবে কিনা জানতে চাইলে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের কাছে সবসময় দাবি করে আসছি। পরিবারের পক্ষ থেকে যে আবেদন করা হয়েছিল সেখানে উল্লেখ করা হয়েছিল খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য যাতে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়, কিন্তু সেটা তারা (সরকার) করেনি।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য বেগম সেলিমা রহমান বলেন, খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়টা তারা (সরকার) ইচ্ছে করে আটকে রেখেছেন। আর তার সাজা স্থগিত, এটা বলতে গেলে কারাগারেই। এটাও কারাগার, মানে উনি মুক্ত নন। এতে জামিন পুরোপুরি বলা চলে না। জামিন মানে ফ্রী ভাবে চলাফেরা করতে পারা কিন্তু সেই অবস্থার মধ্যে ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) নেই।

সেলিমা রহমান আরও বলেন, জামিন দিলেও তারা যে শর্ত জুড়ে দিয়েছেন তার অর্থটা কি? তার অর্থ হচ্ছে যে করে হোক ম্যাডামকে (খালেদা জিয়া) একদিক থেকে হয়রানি করা, অন্যদিকে তার স্বাস্থ্যগত অবনতি হোক এটাই হচ্ছে তাদের ইচ্ছে। এখন আইনগত চেষ্টা ছাড়া আর কিছু তো আমাদের হাতে নেই। আমরা তো আর কিছু করতে পারছি না। কারণ আইন তো তারা আটকে দিয়েছে। বিচারক তো স্বাধীন নয়, বিচারক তো চলছে উপর থেকে যা বলছে সেই কথা মত।

এসব বিষয়ে সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, আপনি মানবতার দোহাই দিয়ে প্রচার করলেন তাকে (খালেদা জিয়া) মুক্তি দিলাম, তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। এই মুক্তি তো সেইরকম মুক্তি হয়নি। তার পায়ের শিকল খুলে দেয়া হয়েছে, কিন্তু তাকে খাঁচার মধ্যে আটকে রাখা হয়েছে। এটাতো মুক্তি হল না। একজন মানুষের সাংবিধানিক অধিকারের মধ্যে পড়ে তার চিকিৎসা। যেটা বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেকটি মানুষ তার পছন্দ অনুযায়ী চিকিৎসা প্রাপ্য। তার পছন্দ অনুযায়ী যদি চিকিৎসা না করাতে পারে তাহলে সেই জামিনের তো কোন যথার্থতা নেই। যে কারণে খালেদা জিয়ার প্রতি অনুকম্পা বা দয়া দেখানো হয়েছে সেটা তো মূলত তার শারীরিক অসুস্থতার কারণে কিন্তু বাস্তবে আমরা তা দেখছি না।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest