শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০২:০৬ অপরাহ্ন

সরকারী স্কুলের অফিস রুমে তালা, প্রধান শিক্ষকের কান্না!

সরকারী স্কুলের অফিস রুমে তালা, প্রধান শিক্ষকের কান্না!

 ইউসুফ আলী : ত্রিশাল সরকারী নজরুল একাডেমী শিক্ষার্থীদের সরকারিভাবে দেয়া হচ্ছে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক টিকা । বৃহস্পতিবার থেকে এদৃশ্য প্রত্যক্ষ করে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক মোঃ মেজবাহ উদ্দিন । তার গগন কাপানো আত্বচিৎকারে নজরুল একাডেমী প্রাঙ্গনসহ এলাকার বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। ঢুকরে ঢুকরে কেঁদে প্রশ্ন করছেন, কি দোষ ছিল আমার । কারো কাছে নেই তার প্রশ্নের উত্তর । সবাই বলছেন, স্যার আপনাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে । আমরা জানি আপনি অনেক ভাল মানুষ । জানা যায়, একটি মিথ্যা মামলার শিকার হন প্রধান শিক্ষক মো: মেজবাহ উদ্দিন । এরপর তার অনুভূতি বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ে জীবনের বাঁকে।

দীর্ঘ ৩০ বছরের গৌরবময় কর্মজীবন থেকে হারিয়ে গেছে ২০১৮ সাল থেকে লম্বা ৩ টি বছর । প্রিয় শিক্ষার্থীরা আড়াল হয় চক্রান্তের কবলে । দীর্ঘ সময় পর প্রধান শিক্ষক হিসাবে আবারও যোগদান করার পর থেকেই সরকারি নজরুল একাডেমী শিক্ষার্থীদের পাশে দাড়িয়েছেন তিনি । একটি কামড়ায় বসে নিজের দায়িত্বে টিকা কার্ডে স্বাক্ষর দিয়ে শিক্ষার্থীদের টিকা গ্রহনের সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক মেজবাহ উদ্দিন । তখন তিনি চিৎকার করে কাঁদছেন আর বলছেন আমাকে যারা অন্যায় ভাবে কষ্ট দিয়েছে তাদের বিচার যেন আল্লাহ করেন। স্থানীয় ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকদের দাবি প্রধান শিক্ষক মো: মেজবাহ উদ্দিনকে পরিকল্পিতভাবে একটি সাজানো মামলায় জড়িয়ে তিন বছর হয়রানি করেন । আদালতে তিনি নির্দোষমুক্ত হওয়া এবং সরকারি আদেশে প্রধান শিক্ষক হিসাবে তিন বছর পর দায়িত্ব নেয়ায় খুশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মহল । এব্যাপারে প্রধান শিক্ষক মো: মেজবাহ উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে অসহায় চোখে তাকিয়ে জানান, আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন মামলা দায়েরের মাধ্যমে আমাকে এবং আমার পরিবারকে নি:শেষ করা হচ্ছে ।

বিজ্ঞ আদালত থেকে আমি ন্যায় বিচার পেয়েছি । আমি আদালতের কাছে কৃতজ্ঞ। জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক মো: মেজবাহ উদ্দিন নিজের সুনাম, টাকা- পয়সাসহ সর্বস্ব হারিয়েছেন । তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের আগ পর্যন্ত নজরুল একডেমী আর পরিবার পরিজন- নিয়ে ভালোই চলছিল তার শিক্ষকতা আর পারিবারিক জীবন। হঠাৎ পরিকল্পিত সর্বনাশা সাজানো মামলা সব উলোট-পালোট করে দিয়েছে তার জীবনের সব সমীকরণ। তিনি একজন শিক্ষক। খুব বেশি আয়ের মানুষ নন। অথচ সাজানো মামলা বইতে গিয়ে বেতন থেকে তার জমানো টাকা- পয়সা খুইয়েছেন অনেক আগেই। এরপর বিভিন্ন ধারদেনা কে পরিবারের লোকজনকে চলতে হচ্ছে। হাঁপিয়ে উঠেছেন তিনিসহ পরিবারের লোকজন । শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা হলেন হেড স্যার মো: মেজবাহ উদ্দিনের মত ভাল মানুষ খুব কমই আছেন ।

তিনি স্কুল আর নিজের পরিবারের মাঝেই ব্যস্ত থাকেন । সরকারি নজরুল একাডেমীর ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, আমি অসুস্থ্য । হাসপাতালে ভর্তি আছি । আমি অফিসিয়াল কোন আদেশ পাইনি । তবে মামলার বাদী উচ্চ আদালতে আপিল করেছেন শুনেছি । এব্যাপারে ত্রিশাল উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এ্যাসিল্যান্ড জানান, স্কুলটি পরিচালনা কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা । সরকারি নজরুল একাডেমীর বিষয়ে আমি অবগত আছি । অপরদিকে ছাত্র জীবনের পাঠ চুকিয়ে দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে একাগ্র চিত্তে পাঠদান ও প্রধান শিক্ষকের গুরু দায়িত্ব পালন করে নিজেকে একজন অনুকরনীয়, অনুসরনীয় মহানুভব প্রধান শিক্ষক হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন মো: মেজবাহ উদ্দিন ।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest