বৃহস্পতিবার, ৩০ Jun ২০২২, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন

মাওনা হাইওয়ে থানার সফল ওসি মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম

মাওনা হাইওয়ে থানার সফল ওসি মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম

 রাকিবুল হাসান আহাদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

মাওনা হাইওয়ে থানায় মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম ওসি হিসেবে যোগদান করার পর থেকেই মহাসড়কে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে। একসময়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক একটি আতংকের নাম ছিলো। ঘন্টার পর ঘন্টা এ মহাসড়কে যানজটে বসে থাকতে হতো। আর এখন এ সড়কগুলো যেনো শান্তির সড়কে পরিণত হয়েছে। তবে এসব সফলতা মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম ও তার অধীনাস্থ সকল পুলিশ সদস্যের। এ চৌকস পুলিশ অফিসার মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম এর এমন কর্মকান্ডে খুশি সাধারণ মানুষ। সরেজমিনে জানা যায়, মাওনা হাইওয়ে থানার ওসিসহ পুলিশের প্রতিটি সদস্য ঝুঁকি নিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মাওনা হাইওয়ে থানার অধীনে মহাসড়ক জৈনাবাজার থেকে ভবানীপুর পর্যন্ত সরকার ঘোষিত কোন প্রকার থ্রীহাইলার যানবাহন চলতে পারবে না। তারপরও যদি এগুলো আমাদের অগোচরে মহাসড়কে উঠে এবং পাওয়া যায় তবে সেগুলো আটক করে মামলা দেওয়া হচ্ছে। মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম কয়েক মাসের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, মানবিক সেবা দৃষ্টান্ত ও নজর কাড়ার মতো। তিনি দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রতিটি পুলিশ সদস্যদের মত তিনি দায়িত্বে পালনে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি ঢাকা ময়মনসিংহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন সড়কে বিট পুলিশ রয়েছে কমিউনিটি পুলিশ এবং থানা পুলিশ সমন্বয় করে কাজ করছে।

সড়কে থ্রি হুইলার, সিএনজি ,অটোরিক্সা বের হওয়া যানবাহনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করছে। একান্ত আলাপকালে থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম জানান, অতীতে এই থানায় কে কি করেছে মানুষ কতটুকু সেবা পেয়েছে সেটা আমি বলতে চাই না, আমি কতটুকু সেবা মানুষকে দিতে পারছি এবং পারবো সেটাই মুখ্য বিষয়। তিনি বলেন, মানুষকে সেবা দেওয়াই আমার মূল লক্ষ্য। এই থানার সকল পুলিশ সদস্যকে স্পষ্ট ভাষায় জানানো হয়েছে, অবৈধপন্থা অবলম্বন করলে, মানুষকে সেবা থেকে বঞ্চিত করলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আমরা মানুষকে সেবা দিতে এসেছি, হয়রানি করতে নয়। মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম বলেন, হাইওয়ে দুইপাশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে। ভবানীপুর বাস স্ট্যান্ড থেকে জৈনা বাজার বাস স্ট্যান্ড পর্যন্ত। মহাসড়কে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করনীয় সংক্রান্ত প্রশিক্ষন কর্মশালা দেওয়া হয়েছে শ্রমিকদের। থানার আশপাশে নিরাপদ সড়ক রাখার জন্য মাইকিং করে অবৈধ যানবাহন উঠতে নিষেধ করা হয়েছে। পুলিশ স্ট্যাফদের অগ্নি নির্বাপক প্রশিক্ষন দেওয়া হয়েছে।

যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশ জিরো টলারেন্স নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বিট পুলিশ গঠন করে অফিসার ও ফোর্সরা কমিনিটি পুলিশিং এর সাথে কাজ করে যাচ্ছে সবসময়। মহাসড়কে কেনো ধরনের থ্রি হুইলার, নসিমন, অটোরিক্সা, ইজিবাইক, সিএনজি মহাসড়কে চলতে দিচ্ছি না। আপনারা জানেন, গত ঈদ উল ফিতরে বাংলাদেশ হাইওয়ে পুলিশ অত্যন্ত আস্হা ও বিশ্বাসের সাথে ডিউটি করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে সুনাম কুড়িয়েছে। আমাদের হাইওয়ে পুলিশের কর্ণধার মাননীয় অতিরিক্ত আইজি জনাব মল্লিক ফখরুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএম মহোদয়ের পরিকল্পনা ও সময়োপযোগী নির্দেশনা মোতাবেক গাজীপুর হাইওয়ে রিজিওনের মান্যবর পুলিশ সুপার জনাব আলী আহমদ খান মহোদয়ের নেতৃত্ব ও নির্দেশনায় আসছে ঈদ উল আযহাকে সামনে রেখে মহাসড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ইতিমধ্যে মাওনা হাইওয়ে থানার পুলিশ কাজ শুরু করেছে। আশা করি ঈদ উল ফিতরের মতো ঈদ উল আযহার সময়ও সাধারণ মানুষকে নির্বিঘ্নে ঘরে ফিরে যেতে সহায়তা করে সাধারণ জনগণের আস্থা ও ভালোবাসা পাবে।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest