বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:১৪ অপরাহ্ন

পাসপোর্ট অফিস, ঘুষ দেওয়াটাই যেখানে একটা নিয়ম!

পাসপোর্ট অফিস, ঘুষ দেওয়াটাই যেখানে একটা নিয়ম!

নিজস্ব প্রতিবেদক,

ঘুষ কমবেশি অনেক জায়গাতেই আছে, তবে পাসপোর্টের বিষয়টা ওপেন সিক্রেট। যেন ঘুষ দেওয়াটাই সেখানে একটা নিয়ম! সরকারের নির্ধারিত ফি-তে পাসপোর্ট হাতে পান খুব কম সংখ্যক নাগরিক। এ অবস্থায় ঘুষের তথ্যানুসন্ধানে মাঠে নেমেছিল গোয়েন্দাদের একটি দল। দীর্ঘ অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে পিলে চমকানো তথ্য। প্রতি মাসে প্রায় ১২ কোটি টাকা ঘুষ তোলেন বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা।

 

হিসেব অনুযায়ী, বছরে টাকার এই অংক গিয়ে দাঁড়ায় কমবেশি ১৪৪ কোটিতে, সাধারণ মানুষের পকেট থেকে যেটা ভাগ ভাগ হয়ে বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তার পকেটে গিয়ে পৌঁছায়। এ নিয়ে বরাবরই অভিযোগ থাকলেও এই ‘শক্তিশালী’ সিন্ডিকেট ভাঙা সম্ভব হয়নি। তবে এবার সাক্ষ্যপ্রমাণসহ পুরো একটা প্যাকেজ প্রতিবেদন তৈরি করেছে গোয়েন্দা সংস্থা, ইতোমধ্যেই তা দুদকে পাঠানো হয়েছে।

 

গোয়েন্দা সংস্থার তৈরি করা প্রতিবেদনে দেখা গেছে, দেশের ৬৯টি পাসপোর্ট অফিসে গড়ে প্রতি মাসে ২ লাখ ২৬ হাজার ৫০০টি পাসপোর্টের আবেদন জমা পড়ে। ভয়ানক তথ্য হলো, এর মধ্যে ৬০ ভাগ আবেদনই জমা হয় দালালের মাধ্যমে। নানা কারণে সাধারণ মানুষ বাধ্য হয়ে দালালদের সাহায্য নেন। তারা প্রত্যেক পাসপোর্ট থেকে বাড়তি অন্তত ১ হাজার টাকা করে নেয়। মাস শেষে যার যোগফল ১১ কোটি ৩২ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

ঘুষের ফিরিস্তি সংক্রান্ত এই প্রতিবেদন পাওয়ার কথা স্বীকার করে দুদকের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, করোনার কারণে অ্যাকশনে যেতে কিছুটা দেরি হচ্ছে। তবে আমরা প্রস্তুত আছি। প্রতিবেদনে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে সবকিছু এসেছে। জড়িত কোনো কর্মকর্তাকেই ছাড় দেওয়া হবে না।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest