রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:২০ অপরাহ্ন

শুভ্র’র পরিবারের খোজঁখবর নিতে তার বাড়িতে গেলেন বাবু

শুভ্র’র পরিবারের খোজঁখবর নিতে তার বাড়িতে গেলেন বাবু

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্রকে কুপিয়ে হত্যার পর খোঁজখবর নিতে তার বাড়িতে গেলেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু।শনিবার (২৪ অক্টোবর) বিকেলে গৌরীপুর পৌর কবরস্থানে তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে মাসুদুর রহমান শুভ্র’র কবর জিয়ারত করেন তিনি।এ সময় কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় মোনাজাতে অংশগ্রহণ করেন তিনি।এর আগে আফজালুর রহমান বাবু দুপুর ২টার দিকে শুভ্র হত্যার প্রতিবাদে স্বেচ্ছাসেবকলীগের বিক্ষোভ মিছিলে যোগদান করেন।পরে নিহত শুভ্র’র পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানাতে কালিপুর এলাকায় তার বাসায় যান আফজালুর রহমান বাবু। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মেজবাহ উল হোসেন সাচ্চু, সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান স্বপন, যুগ্ম সম্পাদক মোবাশের চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুর রহমান টিটু, নাফিউল করিম নাফা, ময়মনসিংহ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নুুরুজ্জামান খোকনসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ আগস্ট ( শনিবার) রাত সাড়ে ১০টার দিকে গৌরীপুর উপজেলা সদরের পান মহালে চায়ের দোকানে মাসুদুর রহমান শুভ্র সহযোগীদের নিয়ে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় গৌরীপুর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদের নেতৃত্বে দুইটি সিএনজি দিয়ে ৮-১০ জন সন্ত্রাসী এসে তার ওপর হামলা চালায়।এ সময় শুভ্র ও তার দুই সহযোগীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় মাসুদুর রহমান শুভ্রকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।পরে ১৮ অক্টোবর ভোররাতে জেলার তারাকান্দার গাছা এলাকা থেকে চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ ও জাহাঙ্গীর আলম, রাসেল, মজিবুর নামে তিনজনকে মইলাকান্দা ইউনিয়নের কাউরাট থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় সোমবার (১৯ অক্টোবর) রাত ১০টার দিকে নিহতের ছোট ভাই আবিদুর রহমান প্রান্ত বাদী হয়ে চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদকে প্রধান আসামি ও হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করার পর ওই চারজনকে হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্র হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গৌরীপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।এদিকে শুক্রবার (২৩ অক্টেবর) শুভ্র হত্যা মামলার অন্যতম আসামি নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ হাওর এলাকা থেকে খাইরুলকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।শনিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবা আক্তার ৪নং আমলী আদালতে ১৬৪ জবানবন্দিতে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন খাইরুল। জবাবন্দির পর আদালতের নির্দেশে খাইরুলকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest