শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ০১:১২ অপরাহ্ন

যাকে ছাড়তে নিক্সন চৌধুরীর হুমকি, তাকে বরখাস্ত

যাকে ছাড়তে নিক্সন চৌধুরীর হুমকি, তাকে বরখাস্ত

মাদারীপুরের কালকিনী পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী এস এম লুৎফর রানাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। সরকারি চাকরিজীবী হয়েও ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনে একজন প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট হওয়া, কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অসদাচরণ ও জাল ভোট প্রদানের প্রচেষ্টার অভিযোগে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নির্বাচনের দিনই জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আল-আমিন। এরপর বুধবার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এস এম লুৎফর রানাকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

গত ১০ অক্টোবর চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন হয়। নির্বাচনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আল-আমিন। নির্বাচন শেষে তিনি জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগে বলেন, নির্বাচনের দিন চর অযোদ্ধা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের দোতলায় বুথের সামনে এক ব্যক্তিকে সন্দেহভাজন হিসেবে দেখা যায়। তিনি জাল ভোট দিচ্ছেন এমন সন্দেহ হওয়ায় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তখন জানা যায়, তিনি একজন পোলিং এজেন্ট। তখন নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে তাঁকে হেফাজতে নেওয়া হয়।

অভিযোগে বলা হয়, অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে হেফাজতে নেওয়া ওই ব্যক্তির নাম এস এম লুৎফর রানা। তিনি মাদারীপুরের কালকিনী পৌরসভার উপসহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত। তিনি সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা ১৯৭৯ এবং উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৩, উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এবং সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮-এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করেছেন। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) তার পত্রে আরো উল্লেখ করেন, এরপর ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন তাকে মোবাইলে ফোন করে ধৃত ব্যক্তিকে ছেড়ে দিতে বলেন।

ওই উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাসক ও নির্বাচনি দায়িত্ব পালন করা কর্মকর্তাদের হুমকি-ধামকি দেওয়ার অভিযোগ ওঠায় গত কয়েক দিন ধরেই আলোচনা চলছে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া নিক্সন চৌধুরীকে নিয়ে। তবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে গালি ও হুমকি দেওয়ার অডিও ফেসবুকে ভাইরাল হলেও তা ‘সুপার এডিটেড’ বলে দাবি করেছেন মুজিবর রহমান চৌধুরী নিক্সন। ভোটের দিন সকালে বুথে ঢুকে ভেতরে সিগারেট খাওয়া ও জাল ভোট দেওয়ার চেষ্টা করায় নিক্সন চৌধুরীর এক অনুসারীকে আটক করেছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে আসা ভাঙ্গা উপজেলার একজন সহকারী কমিশনার (এসি ল্যান্ড)।

এই ঘটনার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগ যেমন তার বিচার দাবি করেছে, তেমনি বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনও এই সাংসদকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest