মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

নান্দাইলে বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে স্বাস্থ্য কর্মীদের কর্ম বিরতি পালন

নান্দাইলে বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে স্বাস্থ্য কর্মীদের কর্ম বিরতি পালন

 এইচএম সাইফুল্লাহ, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন বৈষম্য নিরসনের ঘোষনা দিলেও তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি এবং পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারী তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্য কর্মীদের দাবিগুলো মেনে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য কমিটি গঠন করলেও তা আজও আলোর মুখ দেখেনি। সর্বশেষে ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য সচিব ও মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী দাবিসমূহ মেনে নিয়ে লিখিত সমঝোতা পত্রে স্বাক্ষর করলেও তা অদ্যাবধি কোন অগ্রগতি হয়নি। এসব বাস্তবায়ন ও প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে মাঠ পর্যায়ে কর্মরত স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারী গণ বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ১০ঘটিকা হতে দুপুর ২ঘটিকা পর্যন্ত কর্ম বিরতি পালন করেন। চার দফা দাবিতে তারা বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্য কর্মীদের কাজের অর্জনেই বাংলাদেশ আজ টিকাদানে বিশ্ব রোল মডেলে পরিনত হয়েছে এবং সরকার প্রধান পেয়েছে ৭ টি পুরস্কার। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল এলায়েন্স ফর ভ্যাক্সিনেশন এন্ড ইমুনাইজেশন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যাকসিন হিরো উপাধিতে ভূষিত করেন। এ সন্মাননা গুলো অর্জনের একমাত্র কারিগর স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারী গণ। তাছাড়া মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে সারাদেশে যেখানে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে সরকার নির্দেশনা দিয়েছিলেন এবং ঘোষনা করেছিলেন সাধারণ ছুটি। আর সে অবস্থায় করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে থেকে জনগণকে স্বাস্থ্য শিক্ষা সহ স্বাস্থ্য সহকারীরা টিকাদান করেন এবং করোনা শুরুর দিকে স্বাস্থ্য সহকারীরা বিদেশ ফেরতদের তথ্য সংগ্রহ করে স্ব স্ব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করেন। ২০০৪ সালে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও স্বাস্থ্য সহকারী একই গ্রেডে ছিল এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকগণ স্বাস্থ্য সহকারীদের এক গ্রেড নীচে থাকা সত্বেও বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ১১ তম গ্রেড ও সহকারি শিক্ষক ১৩ তম গ্রেডে উন্নীত হলেও চিকিৎসা ক্ষেত্রে যথেষ্ট অবধান রাখার পরেও স্বাস্থ্য সহকারীগণ ১৬ তম গ্রেডেই আছেন।ফলে স্বাস্থ্য সহকারীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেতন গ্রেড যথাক্রমে ১১, ১২ ও ১৩ তম গ্রেডে উন্নীতকরণের দাবি জানান। তাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আসন্ন আগামী ৫ ডিসেম্বর হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন সহ দেশের ১ লক্ষ ২০ হাজার আউটরিচ রুটিন টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ থাকবে বলেও হুশিয়ারি দিয়েছেন।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest