সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

দোয়ারাবাজারে আদায়কৃত অতিরিক্ত ভর্তি ফি ফেরত দেয়া শুরু

দোয়ারাবাজারে আদায়কৃত অতিরিক্ত ভর্তি ফি ফেরত দেয়া শুরু

এম এ মোতালিব ভুঁইয়া :: একাদশ শ্রেণির অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায়ের সংবাদ প্রকাশ করার পর এলাকাজুড়ে তোলপাড় শুরু হলে দোয়ারাবাজার উপজেলার সকল প্রতিষ্ঠানকে বাড়তি ফি ফেরত দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। এমন নির্দেশনার দীর্ঘদিন পার হলেও এখনো কোন প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত ফি ফেরত দেয়ার উদ্যোগ দেখা যায়নি। এ নিয়ে এলাকার শিক্ষার্থী অভিভাবকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বৃহষ্পতিবার উপজেলার বোগলা রোছমত আলী রাম সুন্দর স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থী অভিভাবকদের নিকট অতিরিক্ত টাকা ফের দেয়া শুরু করলেও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এব্যাপারে নীরব রয়েছে।
সঙ্গত কারণেই অনেকে মনে করছেন, প্রতিবছর নানা অজুহাতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নীতিমালা বহির্ভুত ‘রক্তচোষা নীতি’ অবলম্বন করে অধিকহারে ভর্তি ফি আদায় করছেন। এ কারণে অনেক দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের স্কুলের গন্ডি পেরিয়ে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। শুধু কি তাই, ভর্তি ফি দিতে না পেরে অনেকে ঝরে পড়ে অসময়ে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, এ বছর দোয়ারাবাজার উপজেলার প্রায় সকল কলেজ ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমূহে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নীতিমালা বহির্ভুতভাবে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে আদায় করা হয়েছে অতিরিক্ত ফি। শিক্ষামন্ত্রণালয়ের পরিপত্র অনুযায়ী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি ফি বাবদ নেয়া হবে ১ হাজার টাকা, উন্নয়ন ফি সর্বোচ্চ ১হাজার পাঁচ শত টাকাসহ সর্ব সাকুল্যে ২ হাজার পাঁচ শত টাকা উপর বাড়তি ফি নেয়া যাবেনা। সেখানে প্রায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাড়তি ফি আদায় করা হয়েছিল। উপজেলায় সর্বোচ্চ ফি আদায় করা হয় বোগলা রোছমত আলী রাম সুন্দর স্কুল এন্ড কলেজ। ওই প্রতিষ্ঠান প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ভর্তি ফি বাবদ ৩ হাজার ৬শত টাকা আদায় করেছেন। একই ভাবে উপজেলার লিয়াকতগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজে ৩ হাজার ১শ, সমুজ আলী স্কুল এন্ড কলেজে ৩ হাজার ১শ টাকা আদায় করেছেন। এ নিয়ে সম্প্রতি বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকা ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা জরুরী বৈঠক ডেকে সকল প্রতিষ্ঠানে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা অতিরিক্ত ফি ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেন। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহষ্পতিবার উপজেলার বোগলা রোছমত আলী রাম সুন্দর স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত ফি ফেরত দেয়া শুরু করেছেন।
এ ব্যপারে জানতে চাইলে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোস্তফা কামাল বলেন, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের স্বার্থে অতিরিক্ত ফি নেয়া হয়েছিল। বৃহষ্পতিবার থেকে অতিরিক্ত ফি ফেরত দেয়া শুরু করেছি। উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনাক্রমে টাকা ফেরত দেয়া হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা বলেন, আমি সকল প্রতিষ্ঠানকে জানিয়ে দিয়েছি পরিপত্রের আলোকে একাদশ শ্রেণির ভর্তি আদায় করার জন্য। এখন পর্যন্ত যারা বাড়তি ফি আদায় করেছেন তা ফেরত দিয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে অবহিত করার নির্দেশনা দিয়েছি।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest