শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৪১ অপরাহ্ন

অ্যাপোলো ইস্পাতের ভাইস চেয়ারম্যান ও এমডির বিরুদ্ধে পরোয়ানা

অ্যাপোলো ইস্পাতের ভাইস চেয়ারম্যান ও এমডির বিরুদ্ধে পরোয়ানা

অ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিটেডের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ শোয়েবসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে ৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকার চেক ডিজঅনারের দুই মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম মো. শফিউদ্দিন শুনানি শেষে এ পরোয়ানা জারি করেন। আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। পরোয়ানা জারি হওয়া অন্য আসামিরা হলেন- ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিডেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রফিক, পরিচালক এমএ মজিদ ও রোকসানা বেগম এবং ভাইস চেয়ারম্যান ইভানা ফাহমিদা মোহাম্মাদ।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. মেসবাহউদ্দিন জানান, মেসার্স সেতু স্টিল মিলস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. নুরুল আলম গত ২৮ অক্টোবর ঢাকা সিএমএম আদালতে মামলা করেন। মামলায় আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। কিন্তু আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় বাদীপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার পরোয়ানা জারির আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত আবেদন মঞ্জুর করে পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।

মামলাগুলো হলো- ৫ কোটি টাকার চেক ডিজঅনারের অভিযোগ রয়েছে। এ মামলার অভিযোগে বলা হয়, মামলার আসামিদের সঙ্গে বাদী ১০/১২ বছর ধরে মৌখিক চুক্তি ও সরল মনে ব্যবসা করে আসছেন। সে বিশ্বাসে আসামিদের ওই কোম্পানি থেকে কাঁচামাল ও পণ্য খরিদের জন্য বাদী ব্যাংক থেকে লোন করে এবং বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে অগ্রিম নিয়ে কোম্পানিতে ৫ কোটি টাকা দেন।

কিন্তু আসামিরা কাঁচামাল ও পণ্য প্রদান না করায় ওই ৫ কোটি টাকা বাদী পাওনা থাকেন। এটি পরিশোধের জন্য আসামিরা বাদীকে গত ১৪ জুন আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের ৫ কোটি টাকার একটি চেক প্রদান করেন।

পরে বাদী ওই চেক বাদীর কোম্পানির নামীয় ইসলামী ব্যাংকের গেণ্ডারিয়া শাখায় নগদায়নের জন্য উপস্থাপন করলে ৩১ আগস্ট আসামিদের হিসাবে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় ডিজঅনার হয়। বিষয়টি বাদী আসামিদের জানালে আসামিরা মৌখিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন এবং শিগগিরই নগদ টাকা দিয়ে চেক ফেরত নেবেন মর্মে প্রতিজ্ঞা করেন।

কিন্তু আসামিরা টাকা পরিশোধের ব্যবস্থা না নেওয়ায় গত ২০ সেপ্টেম্বর বাদী আইনজীবীর মাধ্যমে নগদ ৫ কোটি টাকা পরিশোধ করে চেকটি ফেরত নেওয়ার জন্য লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করেন। কিন্তু আসামিরা লিগ্যাল নোটিশ পাওয়ার পরও টাকা পরিশোধ করে চেকটি ফেরত না নেওয়ায় বাদী আদালতে মামলা করেন।

অপর মামলাটি ৫৯ লাখ ২৯ হাজার ২৬৩ টাকার চেক ডিজঅনার হওয়ার অভিযোগ। এ মামলাও বাদীর একই কারণে আসামিদের প্রতিষ্ঠান থেকে পাওনা টাকা ফেরত পেতে। কিন্তু আসামিরা কাঁচামাল ও পণ্য প্রদান না করায় ওই টাকা বাদী পাওনা থাকেন। এটি পরিশোধের জন্য আসামিরা বাদীকে একই দিন আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের ৫৯ লাখ ২৯ হাজার ২৬৩ টাকার একটি চেক দেন।=

পরে ওই চেক বাদী কোম্পানির নামীয় ইসলামী ব্যাংকের গেণ্ডারিয়া শাখায় নগদায়নের জন্য উপস্থাপন করলে গত ৩১ আগস্ট আসামিদের হিসাবে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় ডিজঅনার হয়। বিষয়টি আসামিদের জানালে তারা মৌখিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন এবং শিগগিরই নগদ টাকা দিয়ে চেক ফেরত নেবেন মর্মে প্রতিজ্ঞা করেন।

কিন্তু তারপরও আসামিরা টাকা পরিশোধের ব্যবস্থা না নেওয়ায় গত ২০ সেপ্টেম্বর বাদী আইনজীবীর মাধ্যমে নগদ ৫৯ লাখ ২৯ হাজার ২৬৩ টাকা পরিশোধ করে চেকটি ফেরত নেওয়ার জন্য লিগ্যাল নোটিশ দেন।

আসামিরা লিগ্যাল নোটিশ পাওয়ার পরও নগদে ওই টাকা পরিশোধ করে চেকটি ফেরত না নেওয়ায় বাদী আদালতে মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, সদ্যপ্রয়াত শিল্পপতি দীন মোহাম্মদের হাতে গড়ে ওঠে ফিনিক্স গ্রুপ ও অ্যাপোলো গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের অধীনে ডজনখানেক শিল্প ও সেবা প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স এখন বন্ধ হওয়ার পথে। শত শত কোটি টাকা ঋণে জর্জরিত। এসবের জন্য দায়ী করা হচ্ছে ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শোয়েবকে। এই কোম্পানিতে মাল কেনার টাকা দিয়ে অনেক ব্যবসায়ী পথে বসেছেন।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest