সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:০৮ অপরাহ্ন

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, অফিস সহায়ক নয়নের ভয়ে তটস্থ সবাই

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, অফিস সহায়ক নয়নের ভয়ে তটস্থ সবাই

স্টাফ রিপোর্টার :
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অফিস সহায়ক (বর্তমানে বরখাস্ত) আশিকুর রহমান রহমান নয়ন । সরকারি কর্মচারি হত্যা মামলার আসামি । তার বিরুদ্ধে রয়েছে অস্ত্র সহ হত্যা মামলা । ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হত্যা মামলা নং -২২ । রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্মচারি হলেও সন্ত্রাসী হিসাইে তার পরিচিতি ।
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্মকর্তা, কর্মচারি, রোগীও স্বজনরা , ঠিকাদারসহ সকলেই তার ভয়ে তটস্থ । আশিকুর রহমান নয়নের রয়েছে সন্ত্রাসী বাহিনী । উপরোক্তরা ছাড়াও স্থানীয় বাসিন্দারা পর্যন্ত তার হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। বরখাস্ত হওয়ার পরও সদর্পে তার অবস্থান রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে । জানা যায়, অস্ত্র ও হত্যা, চাঁদাবাজি, ও ভুমি দস্যুর মামলার এজাহারভুক্ত এবং ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী আশিকুর রহমান নয়ন ।
রমেক হাসপাতালের পদবী “অফিস সহায়ক”আশিকুর রহমান নয়ন র‌্যাবের হাতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার হয়েছিলেন। সে সময় অস্ত্র আইনে দুটি মামলা হয়। ২০০৭ সালে একটি মামলায় ৭ বছর ও অপর একটি মামলায় ১০ বছর সাজা হয়। নয়ন সাজা ভোগ করার সময় কয়েদী হিসেবে চীফ রাইটার পদে নিয়োজিত ছিলেন। ২০১১ সালে ছাড়া ২০১২ইং সালে রমেক হাসপাতালে চাকরি স্থায়ীকরণ হয়। হত্যা মামলা নং ২২, তারিখ ৭/০৯/১৬ইং। জিআর নং ৭৫৭/১৬। শৃঙ্খলা ও আপিল বিধি মালা ১৯৮৫ এর অনুচ্ছেদ বিসিডি ধারা মোতাবেক স্মারক নং ১৯৯৩.১৯৯১.১৯৯৪.১৯৯২, তারিখ- ১২/০৬/২০১৭ইং তাকে হাসপাতালের চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। যা অদ্যাবদি অব্যাহত রয়েছে। ২০১৮ইং সালে চাঁদাবাজি ও জমি দখলের ঘটনায় আরও একটি মামলা হয়। সে মামলায় আশিকুর রহমান নয়ন ১নং আসামী।
মামলাটিতে নয়ন ওয়ারেন্টভুক্ত হয়ে আছেন। মামলা নং এসআর ২০/১৮। সম্প্রতি রংপুর নগরীর প্রাণকন্দ্রে হাজীপাড়ায় ৫ শতক জমি ক্রয় করেন যার মুল্য ৭০ লাখ টাকা । হেলথ ডায়াগনস্টিক সেন্টার ্ও মেডিকেলের পূর্বগেট এলাকায় একটি ইলেক্ট্রনিক্স দোকানের ৫০% মালিক । ফ্রিজ, এসি, টিভিসহ সকল ধরনের পণ্য শীর্ষ সন্ত্রাসী নয়ন গ্রুপের কাছে জিম্মি । অস্ত্র ও হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত হলে সরকারি চাকরির বিধিমালা অনুযায়ী হাসপাতাল থেকে নয়নসহ তার সিন্ডিকেটের কয়েকজনকে বহিস্কার করা হয়।
এরপর থেকে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে সে নয়ন । পর্যায়ক্রমে হাসপাতালের সবকিছুই নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সাধারণ কর্মচারীদের জিম্মি করে কোনঢাষা করে রাখা হয়েছে। রংপুরের দু’জন সংসদ সদস্য ও স্থানীয় আ’লীগ নেতার ছত্রছায়ায় থাকায় হত্যাসহ বড় ধরনের অপরাধ করেও পার পেয়ে যাচ্ছে সন্ত্রাসী নয়ন। আগ্নিয়াস্ত্র নিয়ে ঘুরে বেড়ালেও আইন শৃংখলা বাহিনী দেখেও না দেখার ভান করে থাকেন।
এদিকে, হাসপাতালের পিয়ন হামিদুলকে নিজ বেতনে জরুরী বিভাগের ইনচার্জ বানানোর ঘটনা নিয়ে রোগীসহ, নার্স ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ। রমেক হাসপাতালে দীর্ঘ দিন থেকে আধিপত্য বিস্তার, অভ্যান্তরীন দ্বন্দ ও ছোট বড় টেন্ডারবাজি নিয়ে কয়েকটি হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্রাহাম লিংকন, মোখলেছুর রহমান, গেদরা শাহিন ও সোহেল। প্রতিটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় মামলাও হয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, আশিকুর রহমান নয়নের বাহিনী প্রতিবাদকারীদের বাড়িতে রাতে মোটরসাইকেলে এসে মহড়া দেয়। এরপর সুযোগ বুঝে তাদের ওপর হামলা করে । যেকারণে তার ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না । এবিষয়ে আশিকুর রহমান রহমান নয়ন জানান, আমি কোন অন্যায়ের সাথে জড়িত নই । মামলা হয়েছে আমি ন্যায় বিচার পাবো ।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest