মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

কথিত ইঞ্জিনিয়ার আবুল ফজল!

কথিত ইঞ্জিনিয়ার আবুল ফজল!

স্টাফ রিপোর্টার : ময়মনসিংহে আবুল ফজল নামে এক কথিত ইঞ্জিনিয়ার একটি গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজের প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল) হিসেবে দাবি করলেও তার এমন দাবিকে প্রতারণা হিসেবে মনে করছে গ্রুপটি। ময়মনসিংহের প্রতিষ্ঠিত ওই গ্রুপটির দাবি তাদের প্রতিষ্ঠানের সুনাম নষ্ট করার জন্য ও মানুষের সাথে প্রতারণার জন্য মূলত ফেসবুকে নিজেকে প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল) হিসেবে দাবি করছে। শুধু তাই নয়, শহরের স্বনামধন্য এই গ্রুপটির পরিচয় বহন করে সাধারণ মানুষের সাথেও করছে প্রতারণা। বিল্ডিং এর নকসা করে দেয়ার নাম করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আর কাজ বুঝিয়ে দেননা। অথচ, এসব ঘটনার কেউ প্রতিবাদ করতে গেলে বা কোন সাংবাদিক নিউজ করলে তাকে এই প্রতারক ফজলেরর বিভিন্ন হুমকিতে পড়তে হয়। সাংবাদিকদের সত্য নিউজ প্রকাশে বাধা সৃষ্টি করতে বিভিন্ন সময় থানায় মিথ্যা অভিযোগ দেয়ারও চেষ্টা করে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট থানা তার অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে অভিযোগ আমলে না নিলে সে বিভিন্ন সন্ত্রাসীদের দ্ধারা হুমকি অব্যাহত রাখে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন গ্রুপ ও ব্যক্তির এমন অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।

জানাযায়, আবুল ফজলের ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি https://www.facebook.com/profile.php?id=100012342879282 তে নিজেকে প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল) হিসেবে পরিচয় দিচ্ছে। অথচ, ওই প্রতিষ্ঠানের তরফ থেকে বলা হচ্ছে সে কখনও প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে ছিল না এবং নাইও। সে ওই গ্রুপের অটোক্যাড সেকশনে ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলো।

এব্যাপারে স্বনামধন্য ওই গ্রুপের একজন পরিচালক জানান, ফজলের সাথে গ্রীণল্যান্ডের কোন সম্পর্ক নেই। আমরা ফজলকে কখনও প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার (সিভিল) হিসেবে নিয়োগ দেয়নি।

অপরদিকে, গত একমাস আগে স্থানীয় ময়মনসিংহ লাইভ এর সম্পাদক এর এক আত্বীয়ের একটি বিল্ডিং এর নকশা করে দেয়ার কথা বলে টাকা নেয়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় অতিবাহিত হলেও কাজ বুঝিয়ে না দেয়ায় তার কাছে টাকা ফেরত চাইলে সে উল্টো মামলা করার হুমকি দেয়। জানাযায়, ভুক্তভোগী যারাই তার অনিয়মের প্রতিবাদ করে তাদেরকেই সে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির চেষ্টা করে।

এব্যাপারে ময়মনসিংহর জনপ্রিয় অনলাইন নিউজপোর্টাল ময়মনসিংহ লাইভ এর সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম বলেন, সত্য সংবাদ প্রকাশ করায় আবুল ফজল বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। সে থানায়ও গিয়ে মিথ্যা মামলা করতে। কিন্তু ময়মনসিংহের পুলিশ প্রশাসন খুবই দক্ষ হওয়ায় তারা নিউজ দেখেই বুঝতে পারে তার সম্পর্কে। বরং সে অপরাধ করে থানায় মামলা করতে গিয়ে নিজের দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ফজলের মতো কালপিট মিথ্যা মামলা দায়ের করার অপচেষ্টা চালিয়ে। ডিজিটাল সিকিউরিটি এ্যাক্ট এর ব্যথ্যয় ঘটাচ্ছে। এদের প্রতিহত করতে অবশ্যই স্তানীয় প্রশাসনসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।


Comments are closed.

© All rights reserved © 2017 24ghontanews.com
Desing & Developed BY ThemeForest